হায়দরাবাদকে হারিয়ে আইপিএলের কোয়ালিফায়ার-২ এ দিল্লি

টান টান টি-টোয়েন্টির উন্মাদনা বিশাখাপত্তনমে। হায়দরাবাদকে ১৬২ রানে আটকে রাখার পরেও পৃথ্বি শ-র দুরন্ত ব্যাটে ভর করে দিল্লি ভালো শুরু করে। কিন্তু নিয়মিত ব্যবধানে উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় শ্রেয়স আইয়ারের দল। ফের একা হাতে ম্যাচ বের করলেন ঋষভ পন্থ। শেষ পর্যন্ত হায়দরাবাদকে হারিয়ে আইপিএলের কোয়ালিফায়ার-২ এ পৌঁছে গেল দিল্লি। সামনে চেন্নাই।

বিশাখাপত্তনমে টস জিতে এদিন প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন দিল্লি অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার। শুরুতেই ঋদ্ধিমান সাহা(৮) আউট হলেও হায়দরাবাদের আর এক ওপেনার মার্টিন গাপটিল কিন্তু ঝোড়ো শুরু করেন। কিন্তু ১৯ বলে ৩৬ রান করে আউট হন গাপটিল। এরপর মনীশ পাণ্ডে এবং কেন উইলিয়ামসন জুটি ধীরে ধীরে খেলতে থাকেন। মনীশ ৩৬ বলে ৩০ রান করেন অন্যদিকে উইলিয়ামসন ২৭ বলে ২৮ রান করেন। শেষ দিকে বিজয় শঙ্কর ১১ বলে ২৫ এবং মহম্মদ নবির ১৩ বলে ২০ রানের সৌজন্যে হায়দরাবাদের ইনিংস শেষ হয় ৮ উইকেটে ১৬২ রানে। দিল্লির হয়ে কেমো পল ৩টি এবং ইশান্ত শর্মা ২টি উইকেট নেন।

১৬৩ রানের টার্গেট চেজ করতে নেমে শুরু থেকেই ঝোড়ো ব্যাটিং দুই দিল্লি ওপেনারের। শিখর ধাওয়ান ১৬ বলে ১৭ রান করে ফিরে যান। দ্রুত ফিরলেন দিল্লি অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার(৮)। ৩৮ বলে ৫৬ রান করে আউট হলেন পৃথ্বি শ। খলিল আহমেদ পর পর দুটো উইকেট তুলে নেওয়ার পর এক ওভারে কলিন মুনরো(১৪) আর অক্ষর প্যাটেলকে তুলে নিলেন রশিদ খান।

এরপর ঋষভ পন্থ প্রায় একা হাতে ম্যাচ নিজেদের দখলে করে নেন। ২১ বলে ৪৯ রান করে ফিরে গেলেন ঋষভ পন্থ। শেষ ওভারে নাটকীয়তায় ভরা। অবস্ট্রাক্টিং দ্য ফিল্ড রান আউট হলেন অমিত মিশ্র। কেমো পল চার মেরে ম্যাচ জিতিয়ে দেন। শেষ পর্যন্ত দিল্লি ২ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয়। হায়দরাবাদের হয় ২টি করে উইকেট নিলেন ভুবনেশ্বর কুমার, খলিল আহমেদ এবং রশিদ খান।