লাল-সবুজের জার্সিতে নতুন মাইলফলকের অপেক্ষায় মাশরাফি

‘ফর্ম ইজ টেম্পোরারি, ক্লাস ইজ পার্মানেন্ট’- শুধু ক্রিকেট নয়, ফুটবল, হকিসহ সব খেলাধুলার সবচেয়ে সহজ অথচ কঠিন সত্য এটি। আবার জীবনের বাস্তবতায় সবচেয়ে কঠিন সত্য হচ্ছে- ‘সবকিছুকেই জয় করা সম্ভব। শুধু বয়সকে জয় করা সম্ভব নয়’। বাংলাদেশ ক্রিকেটের অন্যতম প্রতিভাবান, সবচেয়ে সফল ওয়ানডে অধিনায়ক এবং ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতম লড়াকু ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজার সঙ্গে বেশ মানিয়ে যায় বিশেষণ দুটি।

লাল-সবুজের জার্সিতে বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সফল অধিনায়ক মাশরাফি। তার অধীনে বিশ্বকাপের শেষ আটে জায়গা করে নেয় টাইগাররা। আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির নকআউট পর্বে খেলেছে বাংলাদেশ। দলকে এশিয়া কাপের ফাইনালে নিয়ে গেছে তার নেতৃত্ব। ভারত, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ তার অধীনেই। তবে লাল-সবুজের জার্সিতে অন্যরকম মাইলফলকের অপেক্ষায় মাশরাফি।

মঙ্গলবার মাশরাফি যখন রোভম্যান পাওয়েলের সঙ্গে টস করতে নামেন, অধিনায়কত্বের ম্যাচ সংখ্যায় হয়ে যান হাবিবুল বাশারের সমান। ২০০৪ থেকে ২০০৭ সালের মধ্যে বাংলাদেশ দলকে ৬৯টি ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন বিসিবি নির্বাচক বাশার। ২০১৪ থেকে নিয়মিতভাবে দায়িত্ব চালিয়ে যাওয়া মাশরাফির ৬৯ হলো ক্যারিবীয়ানদের বিপক্ষে চলমান ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে। যৌথভাবে বাশার-মাশরাফিই এখন পঞ্চাশ ওভারি ফরম্যাটে বাংলাদেশকে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে নেতৃত্ব দেওয়া অধিনায়ক।

শুক্রবারের সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে মাঠে নামবে টাইগাররা। আর এই ম্যাচের মধ্য দিয়েই মাশরাফি হয়ে যাবেন লাল-সবুজের জার্সিতে ওয়ানডে ম্যাচে দেশের সবচেয়ে বেশি নেতৃত্ব দেওয়া অধিনায়ক।