প্লে-অফের স্বপ্ন টিকে রইল কলকাতার

ক্রিস লিন-শুভমান গিলের চওড়া ব্যাটে ভর করে প্লে-অফের স্বপ্ন দেখা শুরু কেকেআর শিবিরে। শুক্রবার মোহালিতে কিংস ইলেভেনের ছুঁড়ে দেওয়া ১৮৪ রানের লক্ষ্যমাত্রা ছুঁতে বিশেষ বেগ পেতে হল না নাইট শিবিরকে। দুই ওপেনার পাশাপাশি মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানদের সহযোগীতায় দু’ওভার বাকি থাকতে মাত্র ৩ উইকেট হারিয়েই লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছে গেল নাইট রাইডার্স।

কিংস ইলেভেনের ১৮৩ রানের জবাবে শুরুতে দুই নাইট ওপেনারের ব্যাটে এদিন মোহালিতে জয়ের স্বপ্ন দেখা শুরু হয় নাইট শিবিরে। ২২ বলে মারকাটারি ৪৬ রানের ইনিংস খেলে লিন ফিরে গেলেও দলের রান ততক্ষণে ৬ ওভারে পৌঁছে যায় ৬২-তে। মাত্র ১০.৩ ওভারে দলের রান তিন অঙ্কে পৌঁছে দিয়ে এরপর ডাগ-আউটে ফেরেন রবিন উথাপ্পা। ১৪ বলে ২২ করে আউট হন তিনি।

যদিও থামানো যায়নি শুভমান গিলকে। রাসেলকে সঙ্গে নিয়ে হোমগ্রাউন্ডে চলতি আইপিএলের তৃতীয় অর্ধশতরানটি পূর্ণ করেন তিনি। রাসেল ১৪ বলে ২৪ রানে থামলেও অধিনায়ক কার্তিককে সঙ্গে নিয়ে দলকে সহজ জয় এনে দেন গিল। শেষ অবধি ৪৯ বলে ৬৫ রানে অপরাজিত থেকে যান এই নাইট ওপেনার। কার্তিক অপরাজিত থাকেন ৯ বলে ১১ রানে। দু’ওভার বাকি থাকতেই লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছে যায় নাইটরা। অন্যদিকে টানা চতুর্থ ম্যাচ হেরে এবারের মত প্লে-অফের স্বপ্নভঙ্গ অশ্বিনের দলের।

প্লে-অফের লড়াইয়ে টিকে থাকার ম্যাচে এদিন টসভাগ্য সঙ্গ দেয় নাইট দলনায়ককে। মুম্বাই ম্যাচের উইনিং কম্বিনেশন অপরিবর্তিত রেখেই কিংস ইলেভেনের বিরুদ্ধে মাঠে নামে নাইটরা। অন্যদিকে প্লে-অফের লড়াইয়ে টিকে থাকতে দলে এদিন দু’টি পরিবর্তন আনে পাঞ্জাব। মুজিব উর রহমান ও ডেভিড মিলারের পরিবর্তে দলে আসেন স্যাম কারেন ও অ্যান্ড্রু টাই।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ২২ রানের মধ্যেই রাহুল ও গেইলের উইকেট হারায় পঞ্জাব। তৃতীয় উইকেটে ময়াঙ্ক আগরওয়াল ও নিকোলাস পুরান জুটির ৬৯ রানে ভর করে লড়াইয়ে ফেরে কিংস ইলেভেন। পুরান করেন ২৭ বলে ৪৮। ময়াঙ্ক ফেরেন ২৬ বলে ৩৬ রান করে। এরপর ১৭ বলে ২৫ রানের অবদান রাখেন মনদীপ।

অধিনায়ক অশ্বিন শূন্য রানে ফিরলেও শেষবেলায় জ্বলে ওঠে মুজিব উরের পরিবর্তে এদিন দলে আসা কারেনের ব্যাট। আন্ড্রু টাই রানের খাতা খোলার সুযোগ না পেলেও তাঁকে সঙ্গে নিয়ে মাত্র ২৩ বলে অর্ধশতরান পূর্ণ করেন কারেন। শেষ অবধি ২৪ বলে ৫৫ রানের মারকাটারি ইনিংস খেলে দলের রান ১৮৩-তে পৌঁছে দেন ব্রিটিশ অল-রাউন্ডার।

নাইটদের হয়ে সন্দীপ ওয়ারিয়র ২টি, হ্যারি গারনে, আন্দ্রে রাসেল ও নীতিশ রানা পান ১টি করে উইকেট। তবে ব্যাট হাতে দুরন্ত পারফরম্যান্সের সুবাদে আইপিএলে প্রথম ম্যাচ সেরার পুরস্কার এদিন ছিনিয়ে নেন গিল।