নিষিদ্ধ ড্রাগ রেখে শাস্তির মুখে আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিক

দুর্নামের মুখে পড়ল আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজি কিংস ইলেভেন পঞ্জাব৷ সম্প্রতি জাপানে নিষিদ্ধ নেশার দ্রব্য সঙ্গে রাখার অপরাধে দু’বছরের কারাদণ্ডের সাজা পেয়েছেন ডাকসাইটে ব্যাবসায়ী নেস ওয়াদিয়া, যিনি কিনা আবার কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের অন্যতম মালিক৷ মার্চ মাসে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছিল৷

বছর ঘুরলেই ২০২০ সালে জাপানের মাটিতে এবার বসতে চলেছে টোকিও অলিম্পিকের আসর৷ তার আগে নিজেদের ড্রাগ নীতি নিয়ে কড়া অবস্থান নিয়েছে সেদেশের সরকার৷

নেসের সঙ্গে আইপিএলের নাম জুড়ে যাওয়ার মাঠের বাইরের এই ঘটনায় ভারতীয় বোর্ড ও মেগা টুর্নামেন্টের গৌরব ধাক্কা খেতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে৷ পঞ্জাবের অন্যতম মালিকের এই সাজার কারণে আইপিএলে বড় অসুবিধের মুখে পড়তে পারে কিংস৷

আইপিএলের নিয়মাবলীতে রয়েছে, ফ্র্যাঞ্চাইজির কোর গ্রুপ অর্থাৎ মালিকপক্ষের কোনও ধরণের আচরণে লিগের সুনাম হানি হলে সেই মালিকের ফ্র্যাঞ্চাইজিকে নির্বাসনে পাঠাতে পারে বোর্ড৷ সেক্ষেত্রে নেসের অপ্রীতিকর কাণ্ডের জন্য বড়সড় সাজা ঘোষণা করলে লিগ থেকে পাঞ্জাবকে সরিয়ে দিতে পারে বিসিসিআই৷

অতীতে প্রাক্তন প্রেমিকা প্রীতি জিন্তা তাঁর বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির গুরুতর অভিযোগ এনেছিল৷ সেবার অবশ্য আলোচনার মাধ্যমে বিতর্ক থেকে নিষ্কৃতি পেয়েছিলেন তাবড় এই ব্যাবসায়ী৷ এবার জাপানে ছুটি কাটাতে গিয়ে নিষিদ্ধ মাদক বহন করার অপরাধে দু’বছরের কারাবাসে শাস্তির মুখে পড়েছেন নেস৷ ড্রাগ রাখার মারাত্মক অপরাধে এবার অবশ্য সমস্যা থেকে নেসের বেরানো কঠিন৷