দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ভারতের শক্তিশালী একাদশ

এক দিকে আত্মবিশ্বাসে টগবগে ভারত। অন্য দিকে, টানা দুটো ম্যাচ হেরে দিশাহারা দক্ষিণ আফ্রিকা। চলতি বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে তাই খেলতে নামার আগেই বিরাট কোহালির দলকে ফেবারিট মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। টিম ইন্ডিয়ার প্রথম একাদশে কারা থাকতে পারেন আজ?

ওয়ার্ম আপ ম্যাচগুলিতে নজরকাড়া কিছু করেননি। তবে নিজের দিনে সব সময়ই ভয়ঙ্কর শিখর ধাওয়ান। ১২৮টি আন্তর্জাতিক ওয়ানডে খেলা ধাওয়ানের গড় দেখুন! ৪৪.৬২। স্ট্রাইক রেট ৯৩.৭৯। রয়েছে ১৬টা সেঞ্চুরি। ফলে বিশ্বকাপ অভিযান শুরুর ম্যাচে ওপেনিংয়ে তাঁকেই দেখা যাবে বলে, এটা নিশ্চিত।

শিখর ধাওয়ানের মতোই তার সঙ্গী হিসাবে ওপেনিং স্লটে এক প্রকার নিশ্চিত রোহিত শর্মা। তিন তিনটে ডাবল সেঞ্চুরির মালিক নিশ্চয়ই চাইবেন তাঁর ব্যক্তিগত রানের ঝুলিটা আজ ভরে নিতে। এবং তা হলে দক্ষিণ আফ্রিকার কপালে দুঃখ আছে। ২০৬টা আন্তর্জাতিক ওয়ান ডে-তে ২২টা সেঞ্চুরি রয়েছে রোহিতের। স্ট্রাইক রেট ৮৭.৯৫। গড় ৪৭.৩৯।

সাউদাম্পটনে মাটিতে খেলতে নামার আগেই বিশ্বকাপের সম্ভাব্য চ্যাম্পিয়নের তকমা জুটে গিয়েছে টিম ইন্ডিয়ার। বিরাট কোহালি বলেছেন, চাপ কী ভাবে নিতে হয় তা জানেন। টিম ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেনকে ব্যাট করতে দেখা যাবে তিন নম্বরে। ৪১টি ওয়ান ডে সেঞ্চুরির মালিক কি আজকের ম্যাচে ঝলসে উঠবেন?

চার নম্বরে কে ব্যাট করবেন? টিম ইন্ডিয়ার বিশ্বকাপ অভিযানের আগে থেকেই এই প্রশ্নটা নিয়ে কম আলোচনা হয়নি ক্রিকেট মহলে। তবে ওয়ার্ম আপ ম্যাচে সেঞ্চুরি করে সে প্রশ্নের উত্তর দিয়ে দিয়েছেন লোকেশ রাহুল। নিজের প্রতিভা অনুযায়ী আজ খেলতে পারলে ফ্যাফ ডুপ্লেসিদের জন্য যথেষ্ট দুশ্চিন্তা বয়ে আনতে পারেন রাহুল।

লোকেশ রাহুলের মতোই ওয়ার্ম আপ ম্যাচে সেঞ্চুরি এসেছে এমএস ধোনির ব্যাট থেকে। ফলে টুর্নামেন্ট শুরুর আগে থেকেই দুর্দান্ত ফর্মে। ৩৭ বছরের ধোনির এটাই শেষ বিশ্বকাপ হতে পারে। ফলে নিজেকে উজাড় করে দিতে মুখিয়ে থাকবেন, তা বলাই যায়। আজ পাঁচ নম্বরে ব্যাট করতে আসতে পারেন ধোনি।

কেদার যাদব না বিজয় শঙ্কর? কে থাকবেন টিমে? অনেকের মতে, আকাশ মেঘলা থাকলে টিমে থাকুক শঙ্কর। তাতে ব্যাটিংয়ের সঙ্গে শঙ্করের ফাস্ট মিডিয়াম বোলিংয়ের ফায়দা নিতে পারবে ভারত। তবে দক্ষিণ আফ্রিকার স্পিন খেলার দূর্বলতার কথা মাথায় রাখলে কেদারের ভাগ্যেই শিকে ছিঁড়তে পারে। তা ছাড়া, কেদারের ব্যাটিংটাও তো হেলাফেলা করার মতো নয়।

অলরাউন্ডার হিসাবে হার্দিক পাণ্ডিয়ার দলে থাকাটা এক প্রকার নিশ্চিত। আইপিএলের মতো টুর্নামেন্টে ফের এক বার নিজেকে প্রমাণ করেছে হার্দিক। তাঁর প্রথম বিশ্বকাপ হলেও টিম ইন্ডিয়ার কালো ঘোড়া হয়ে উঠতে পারেন তিনি। ধোনির মতোই লোয়ার অর্ডারে তাঁর ব্যাটিং বেশ কার্যকরী। সঙ্গে হার্দিকের ফিল্ডিং ও বোলিংয়ের কথাটা ভুলে যাবেন না।

আইপিএলে তেমন একটা পারফরম্যান্স না থাকলেও আজকের ম্যাচের প্রথম একাদশে কুলদীপ যাদবের উপরেই ভরসা রাখছেন ক্যাপ্টেন কোহালি। সাউদাম্পটনের বাইশ গজে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে তুরুপের তাস হতে পারেন কুলদীপ।

কুলদীপের স্পিন জুটি হিসাবে আজ প্রথম একাদশে থাকতে পারে যুজবেন্দ্র চহাল। বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ার্ম আপ ম্যাচে ৩ উইকেট নিয়ে টুর্নামেন্ট শুরুর আগে টিম ম্যানেজমেন্টকে ভরসা দিয়েছেন। সাউদাম্পটনে মাটিতে তাঁর লেগব্রেক সামলাতে বেকায়দায় পড়তে পারেন ফ্যাফ ডুপ্লেসিরা। ফলে রবীন্দ্র জাদেজার বদলে আজ মাঠে চহালকে দেখা যেতে পারে।

দুই পেসার এবং দুই স্পিনারের রণনীতি নিয়ে নামলে আজকের ম্যাচে পেস অ্যাটাকের দায়িত্ব পড়তে পারে যশপ্রীত বুমরার চওড়া কাঁধে। ইংল্যান্ডের স্যাঁতসেতে আবহাওয়ায় বুমরার ইয়র্কারের পাশাপাশি সুইংও কাজে দেবে।

ভুবনেশ্বর কুমার না মোহাম্মদ শামি? বুমরার সঙ্গে টিম ইন্ডিয়ার পেস অ্যাটাকে কে থাকবেন? এ প্রশ্নটা কঠিন মনে হলেও সাম্প্রতিক ফর্মের বিচারে আর ভারত দুই পেসার খেলালে শামির দলে থাকাটাই নিশ্চিত মনে করা হচ্ছে।