আইপিএলে সর্বকনিষ্ঠ হাফ-সেঞ্চুরিয়ান রিয়ান প্ররাগ

মাত্র ১৭ বছর বয়সে বড় মঞ্চে প্রতিভার পরিচয় দিয়েছেন৷ কুড়িয়েছেন বিশেষজ্ঞদের প্রশংসা৷ শনিবার লিগে তাদের শেষ ম্যাচে সবচেয়ে কম বয়সে হাফ-সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়লেন রিয়ান প্ররাগ৷ মাত্র ১৭ বছর ১৭৫ দিন বয়সে হাফ-সেঞ্চুরি করে ভেঙে ফেলেন সঞ্জু স্যামসনের রেকর্ড৷

শনিবার কোটলায় প্ররাগের ব্যাটে লজ্জা বাঁচিয়েছে রাজস্থান রয়্যালস৷ দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে ব্যাটিং ভড়াডুবির হাত থেকে রয়্যালসদের সম্মানজনক স্কোরে পৌঁছে দেয় প্ররাগের লড়াকু হাফ-সেঞ্চুরি৷ তাঁর ব্যাটে ভর করে ৯ উইকেটে ১১৫ রান তোলে রাজস্থান৷ ইনিংসের শেষ ওভারে ট্রেন্ট বোল্টকে ডাবল ছক্কা হাঁকিয়ে হাফ-সেঞ্চুরিতে পৌঁছন অসমের এই তরুণ৷

আইপিএলের ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে কম বয়সে হাফ-সেঞ্চুরি৷ এর আগে সবচেয়ে কম বয়সে হাফ-সেঞ্চুরি ছিল স্যামসনের৷ ১৮ বছর ১৬৯ দিন বয়সে হাফ-সেঞ্চুরি করেছিলেন রাজস্থান রয়্যালসের এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান৷ স্যামসনের সঙ্গে একই বয়সে অর্থাৎ ১৮ বছর ১৬৯ দিন বয়সে ফিফটি করেছিলেন পৃথ্বী শ৷ দিল্লি ক্যাপিটালসের উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান ঋষভ পন্তের হাফ-সেঞ্চুরি রয়েছে ১৮ বছর ২৩৭ দিন বয়সে৷

এদিন কঠিন পরিস্থিতিতে ব্যাটিং করে দলের স্কোর একশোর গণ্ডি টপকাতে সাহায্য করেন প্ররাগ৷ মাত্র ৫৭ রানে ৬ উইকেট হারানো রয়্যালস ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যেতে একা লড়াই করেন রিয়ান৷ ৪৯ বলে ৫০ রানে ইনিংসের শেষ বলে আউট হন তিনি৷ ইনিংসে ২টি ছক্কা ও চারটি বাউন্ডারি মারেন প্ররাগ৷ রাজস্থান ইনিংসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান লিভিংস্টোনের ১৪৷ মাত্র তিন রয়্যালস ব্যাটসম্যান এদিন দু’ অংকের রানে পৌঁছন৷

এর আগে প্ররাগের ব্যাটিংয়ের প্রশংসা করেছেন রাজস্থান রয়্যালস ক্যাপ্টেন স্টিভ স্মিথের৷ ২০১৯-এ আইপিএল অভিষেক হয় প্ররাগের৷ এখনও পর্যন্ত সাতটি ম্যাচে ১৬০ রান রয়েছে তাঁর৷ গড় ৩২৷ আইপিএলের আগে অসমের হয়ে চারটি প্রথমশ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন তিনি৷ এছাড়া অনূর্ধ্ব-১৯ ভারতীয় দলের হয়ে ইংল্যান্ডে দু’টি ইয়ুথ টেস্ট খেলেছেন প্ররাগ৷ ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে এই সিরিজে পৃথ্বীর পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান ছিল তাঁরই৷ চেস্টারফিল্ডে ভারতের টেস্ট জয়ে বড় ভূমিকা নিয়েছিলেন প্ররাগ৷