আইপিএল প্লে-অফের ১টি পজিশনের জন্য ৩ দলের লড়াই

কলকাতা নাইট রাইডার্সের কাজটা আরো কঠিন করে দিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। সোমবার কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে তারা বড় ব্যবধানে হারানোয় নেট রান রেটেও খুব ভাল জায়গায় চলে গেল কেন উইলিয়ামসনের দল।

সোমবারের পরে নাইটদের সামনে অঙ্কটা মোটামুটি এ রকম দাঁড়াল: দীনেশ কার্তিকদের শেষ দুটো ম্যাচ জিততেই হবে (প্রতিপক্ষ পাঞ্জাব এবং মুম্বাই)। কিন্তু শুধু জিতলেই হবে না। পাশাপাশি দীনেশ কার্তিকদের প্লে-অফে যেতে হলে তাকিয়ে থাকতে হবে হায়দরাবাদ আর রাজস্থান রয়্যালস দল দুটোর ম্যাচের দিকেও।

হায়দরাবাদের এর পরে ম্যাচ বাকি মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স এবং রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের বিরুদ্ধে। কেকেআর যদি শেষ দুটো ম্যাচ জেতে আর হায়দরাবাদ দুটোতে এবং রাজস্থান একটাতে হারে, তা হলে নাইটরা উঠে যাবে প্লে-অফে। সে ক্ষেত্রে হায়দরাবাদের পয়েন্ট হবে ১২, রাজস্থানের ১২, কেকেআরের ১৪। প্লে-অফের বাকি তিনটে দল হবে চেন্নাই সুপার কিংস, দিল্লি ক্যাপিটালস এবং মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।

এবার প্রশ্ন হচ্ছে, হায়দরাবাদ যদি দুটোর মধ্যে একটাতেও জেতে, তা হলে কী হবে? সে ক্ষেত্রে হায়দরাবাদের পয়েন্ট হবে ১৪। নাইটরা দুটো জিতলে এসে দাঁড়াবে সেই ১৪ পয়েন্টে। কিন্তু হায়দরাবাদের নেট রান রেট এখনও সব চেয়ে ভাল জায়গায় রয়েছে। সে ক্ষেত্রে কেকেআরকে শেষ দুটো ম্যাচে খুব বড় ব্যবধানে জিততে হবে এবং আশা করতে হবে, অন্তত একটা ম্যাচ যাতে হায়দরাবাদ খারাপ ভাবে হারে। কিন্তু হায়দরাবাদ দুটো ম্যাচ জিতে গেলে তারা ১৬ পয়েন্ট নিয়ে সরাসরি চলে যাবে প্লে-অফে।

হায়দরাবাদ এবং কেকেআর যদি শেষ দুটো ম্যাচ জিতে নেয়, তবে চাপে পড়তে পারে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। পাশাপাশি যদি রাজস্থানও (প্রতিপক্ষ রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর, দিল্লি ক্যাপিটালস) শেষ দুটো ম্যাচ জিতে নেয়, তখন প্লে-অফে ওঠার লড়াইটা দাঁড়াবে ত্রিমুখী। সে ক্ষেত্রে মুম্বাই, কলকাতা এবং রাজস্থান— তিনটি দলেরই পয়েন্ট হবে ১৪। কারণ মুম্বাইয়ের শেষ দুই ম্যাচ বাকি হায়দরাবাদ এবং কলকাতার সঙ্গে। এই পরিস্থিতিতে চতুর্থ দল ঠিক হবে নেট রান রেটের হিসেবে। এখনও পর্যন্ত নেট রান রেটের বিচারে এই তিন দলের মধ্যে এক নম্বরে আছে মুম্বাই, দুইয়ে কলকাতা, তিনে রাজস্থান।

কেকেআরের স্বপ্ন শেষ হয়ে যাবে যদি তারা শেষ দুটো ম্যাচের দুটোতেই হেরে যায়। সে ক্ষেত্রে মুম্বাই এবং বড় অঘটন না ঘটলে হায়দরাবাদ প্লে-অফে উঠে যাবে। একটা ম্যাচ হেরেও কেকেআর প্লে-অফে যেতে পারে, কিন্তু সেক্ষেত্রে হায়দরাবাদকে দুটো ম্যাচেই হারতে হবে এবং বেশ খারাপ ভাবে। তা হলেই নেট রান রেটে হায়দরাবাদকে টপকে যেতে পারবে কেকেআর। ফলে ইডেনে জিতেও স্বস্তিতে থাকছেন না দীনেশ কার্তিকেরা।